সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০১২

লুকায়িত কিছু তথ্য

>গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা করে নিলেন বাংলাদেশের আব্দুল হালিম ফুটবল মাথায় নিয়ে সবচেয়ে বেশি দূরত্ব অতিক্রম করার রেকর্ডটি এখন তার। রেকর্ডটি তিনি গড়েছেন ঢাকাতেই২০১১ সালের ২২ অক্টোবর বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে গণমাধ্যম ও জনতার উপস্থিতিতে ১৫.২ কিলোমিটার তিনি পায়ে হেটে পাড়ি দেনপুরো সময়টাই ক্যামেরায় ধারণ করা হয়পরে ভিডিও
চিত্র, সংবাদ প্রকাশিত খবরের কাটিং, নিজের ছবি এবং পাঁচ জনের সাক্ষী নিয়ে তা পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিলো গিনেস ওয়াল্ড রেকর্ডসের সদরদফতর লন্ডনে
তথ্যপ্রমাণাদি পর্যবেক্ষণ করে তিন মাসের মধ্যে মাগুরার অখ্যাত হালিমকে রেকর্ড বুকে স্বীকৃতি দিয়েছে গিনেস ওয়াল্ড রেকর্ডসমঙ্গলবার তাদের ওয়েব সাইটে রেকর্ডের খবরও প্রকাশ করেছেসাফল্যের স্বীকৃতি পেয়ে হালিম প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন,‘আমার বিশ্বাস ছিলো রেকর্ড গ্রহণ হবেদেশের জন্য কিছু করতে পেরে আমি খুবই খুশিগিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসকে আমি ধন্যবাদ জানাই
ফুটবল মাথায় নিয়ে দূরত্ব অতিক্রমের আগের রেকর্ডটি ছিলো মালয়েশিয়ার ইয় মিং লো২০০৯ সালের ২১ আগস্ট তিনি এই রেকর্ড গড়েছিলেনসুবাং জায়া মিউনিসিপ্যালিটি স্টেডিয়ামে ১১.১২৯ কিলোমিটার অতিক্রম করেছিলেন তিনি
>সাপের মাথা কামড়ে নিল শিশুটি !!!!ইসরায়েলের হাইফা অঞ্চলে ১৮ মাসের একটিশিশু তার শোবার ঘরে চলে আসা বিষাক্ত সাপের মাথা কামড়ে ছিড়ে ফেলেছেশিশুটির মা সকালে তাকে দেখতে এসে আবিষ্কার করেন, শিশুটি ৩৫ সেন্টিমিটার লম্বা একটি মৃতসাপ চিবাচ্ছেসেদিন রাতে শিশুটি বাবা-মায়ের সঙ্গে ঘুমিয়েছিলসবার আগে ঘুম থেকে জেগে তার নিজের কক্ষে চলে যায়সেখানেই সে সাপটি দেখতে পায়ঘটনাটি গত বৃহস্পতিবারেরজানা গেছে, শিশুটি সাপের মাথা আঁকড়ে ধরে কামড়া দেয়এতে মাথাটি সাপের দেহ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়তবে আশ্চর্যজনকভাবে সাপের কামড় খাওয়া থেকে বেঁচে গেছে শিশুটিশিশুটিকে জরুরি ভিত্তিতে হাইফা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ডাক্তার জানান, তার শরীরে সাপের কামড়ের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি
 >গর্ভাশয়ে থাকা অবস্থায় ফোটা ফোটা করে ঝরে যায় নবজাতক অলিভার মর্গানের সব রক্তআর বিস্ময়করভাবে শরীরে কোন রক্ত ছাড়াই জন্মে সেজন্মের পর তাকে ফ্যাকাশে ও নিশ্চল দেখাচ্ছিলঅলিভারের শরীরে জন্মের পর ২৫ মিনিট পর্যন্ত তার হার্টবিট খুঁজে পায়নি ডাক্তাররা কোন রকম অনুভূতিও ছিল নাতারপর রক্ত দেয়ার পর সে একটু স্ট্রং হয় ও হার্টবিট ফিরে আসেডাক্তাররা বলেন, এমন অনুভূতিহীন নবজাতক দেখাটা ছিল বিস্ময়কর এবং এবারই প্রথম তারা এটা দেখলেনতার কোন রক্ত এবং হার্টবিট ছিল নাতাকে নিশ্চল ও মৃত দেখাচ্ছিলএরপরই রক্ত দেয়ার পর সব ঠিক হয় প্রথমে ডাক্তাররা মনে করেছিলেন, তার ব্রেইনে সমস্যা হয়েছেতার শরীরের তাপমাত্রা বাড়াতে শিশু কেয়ার ইউনিটের ডাক্তাররা তাকে ছোট একটি কোটের ভেতর ভরে রাখেনরক্ত চলাচল উপযোগী করার জন্য ও হার্টবিট, অনুভূতি ফিরিয়ে আনার জন্য তিনদিন অলিভারকে বিশেষ যত্নে রাখা হয়তিনদিন পর তার মা কেট তাকে দুধ খাওয়ানজন্মের ১১ দিন পর স্বাভাবিকভাবে বাঁচাতে তাকে বাসায় নিয়ে যাওয়া হয়জন্মের আগেও সে বিস্ময় দেখিয়েছেসব আল্টাসনোগ্রাফিতেই দেখা গেছে মেয়ে হবে কেটেরকিন্তু হয়েছে ছেলেতাই আগে থেকেই মেয়ের জন্য কেনা হয়েছে সে রকম জামা, খেলনা ও বন্ধুবান্ধবরাও মেয়ে শিশুর উপযোগী উপহার দিয়েছে তাদেরকিন্তু সব কিছুই জলে গেছে তাদেরবলেছেন, অলিভারের মা কেট তবে সবচেয়ে খুশির ব্যাপার হলো সে শেষ পর্যন্ত বেঁচে আছেআমাদের সবার ভাগ্য ভাল যে, এখন সে একটি ফুটফুটে ও হাসিখুশি তরতাজা শিশুঅথচ সবাই খুবই ভয়ে ছিলাম তাকে নিয়ে
>যুগ যুগ ধরে সত্য বাণী আবারও সত্য প্রমাণ হলোখুলনার দৌলতপুরে সংঘটিত অগ্নিকাণ্ডে কয়েকটি ঘরের সব কিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেলেও পবিত্র কোরআন শরীফ রয়েছে সম্পূর্ণ অক্ষতসুবাহানআল্লাহ্‌ !অক্ষত অবস্থায় পুড়ে যাওয়া ছাইয়ের নীচ থেকে এ কোরআন শরীফ উদ্ধার করা হয়এ সময় ওই কোরআন শরীফ দেখতে এলাকার শত শত উসুক জনতা ভীড় জমায়

উল্ল্লেখ্য, সোমবার দিবাগত রাতে নগরীর দৌলতপুর এলাকার দত্তবাড়ীর জনৈক আজিজুলের ভাড়াটিয়া ৪টি ঘর আগুনে পুড়ে ভস্মিভুত হয়
সূত্রঃ দৈনিক প্রবাহ (খুলনা)


>বিড়াল জাতীয় প্রাণীরা অন্ধকারেও দেখতে পায় এই কথা সবার জানাকিন্তু মানুষের দৃষ্টিশক্তিও এমন হতে পারে এ খবর নিঃসন্দেহে চমকে দেওয়ার মতো এমনই এক বিস্ময়বালকের সন্ধান মিলেছে চীনে
চীনের দক্ষিণাঞ্চলের অধিবাসী নং ইউহুইর বয়স এখন মাত্র ৮ থেকে ১০ বছরসে অন্ধাকারেও সবকিচু স্পষ্ট দেখতে পায়
চীনের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা নিশ্চিত করেছেন, ওই বালক এমন এক বিরল চোখের অধিকারী যে কয়লার মতো কালো বা অন্ধকার পরিবেশেও স্পষ্ট দেখতে পায়, যেমনটি মানুষ দিনের আলোতে দেখে
চলতি মাসের প্রথম দিকে একজন চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ ওই বালককে দেখতে তার গ্রামের বাড়ি যানপরে তিনি তার অভিজ্ঞতার কথা ইউটিউবসহ নানা মাধ্যমে প্রকাশ করে দেন
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইউহুই বিরল চোখ নিয়ে জন্মেছেচিকিসা বিজ্ঞানে একে বলে লিউকোডারমিয়াএই সমস্যা নিয়ে যারা জন্মায় তাদের চোখের রঞ্জক প্রতিরোধক ক্ষমতা কম হয় এবং এসব চোখ আলোর প্রতি অতিমাত্রায় সংবেদনশীল সূত্রঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
 ছবির জ্যাম তা দেখেছেন তো?? এই জ্যাম বিশ্ব রেকর্ড করেছ!!!২০১০ সালে চীন এর বেইজিং শহরে টানা ২০ দিন জাবত এই জ্যাম লেগে ছিল !!!!
আর বেশি অবাক হয়েছি গাড়ি গুলর ডিসিপ্লিন দেখে !! কি শুন্দর নিয়ম মানছে সবাই !!! একটা গাড়ি অন্য গাড়ি থেকে কিভাবে দূরত্ব বজায়ে ট্রাফিক আইন মেনে চলছে


>ইন্দোনেশিয়ার পুলিশ ২৯ বছর বয়সী এক মহিলাকে আটক করেছে মানুষ হত্যা ও মানুষের মাংস খাওয়ার জন্য!!! এই মহিলা এ পর্যন্ত ৩০ জনের বেশি মেয়েকে হত্যা করেছেন এবং তাদের মাংস খেয়েছেন!! তিনি তার স্বামীকেও ছাড়েন নাইতিনি মানুষকে মেরে তাদের মাংস ফ্রিজে রেখে দিতেন...এবং সময় হলে রান্না করে খেতেন!
এই মহিলা বলেছেন যে, প্রায়ই তিনি তার ফ্রেন্ডদের নিয়ে পার্টি করেন এবং তাদেরকে মানুষের মাংস খেতে দেন কিন্তু সেটা তার ফ্রেন্ডরা জানেনও না!! বরং তার ফ্রেন্ডরা বলেছেন তারা নাকি খাবার উপভোগ করেন...!
এই মহিলা বলেছেন তিনি নিজের ইচ্ছাতেই মানুষকে মেরে তাদের মাংস খান... এবং সুযোগ পেলে ভবিষ্যতেও খাবেন! এমনকি জেলের ভিতর থাকাকালে তিনি একজন মহিলা দারোগার উপর আক্রমন চালিয়েছিলেন
Previous Post
Next Post
Related Posts