বুধবার, ২২ জুন, ২০১১

বাংলাদেশ বিষয়-০৩

বিভিন্ন নদীর তীরবর্তী গুরুত্বপূর্ণ শহর/ স্থান
> ঢাকা: বুড়িগঙ্গা নদীর তীরে
> চট্টগ্রাম: কর্ণফুলী নদীর তীরে
> কুমিল্লা: গোমতী নদীর তীরে
> রাজশাহী: পদ্মা নদীর তীরে
> কুষ্টিয়া: গড়াই নদীর তীরে
> বাংলাবান্দা : মহানন্দা নদীর তীরে
> বরিশাল: কীর্তন খোলা নদীর তীরে
> খুলনা: ভৈরব রূপসা নদীর মিলনস্থলে
> সিলেট: সুরমা নদীর তীরে
> ভোলা: তেঁতুলিয়া বলেশ্বর নদীর তীরে
> হবিগঞ্জ: খোয়াই নদীর তীরে
> মৌলভীবাজার: মনু নদীর তীরে
> জামালপুর: পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদীর তীরে
> কিশোরগঞ্জ: পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদীর তীরে
> শরীয়তপুর: পদ্মা নদীর তীরে
> শিলাইদহ: পদ্মা নদীর তীরে
> মহাস্থানগড়: করতোয়া নদীর তীরে
> ছাতক: সুরমা নদীর তীরে
> ময়মনসিংহ: পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদীর তীরে
> দিনাজপুর: পুনর্ভবা নদীর তীরে
> ফরিদপুর: আড়িয়াল খাঁ নদীর তীরে
> মাদারীপুর: পদ্মা নদীর তীরে
> যশোর: কপোতাক্ষ নদীর তীরে
> টেকনাফ: নাফ নদীর তীরে
> বগুড়া: করতোয়া নদীর তীরে
> চন্দ্রঘোনা: কর্ণফুলী নদীর তীরে
> ঝিনাইদহ: নবগঙ্গা নদীর তীরে
> টঙ্গী: তুরাগ নদীর তীরে
> গোলাগঞ্জ: মধুমতি নদীর তীরে
> টুঙ্গীপাড়া: মধুমতি নদীর তীরে
> ঘোড়াশাল: শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে
> সারদা: পদ্মা নদীর তীরে
> ফেঞ্চুগঞ্জ: কুশিয়ারা নদীর তীরে
> নলছিটি: সুগন্ধা নদীর তীরে
> আশুগঞ্জ: মেঘনা নদীর তীরে
> পটুয়াখালী: পায়রা নদীর তীরে
> রাঙামাটি: কর্ণফুলী শংখ নদীর তীরে
> নোয়াখালী: মেঘনা ডাকাতিয়া নদীর তীরে
> সিরাজগঞ্জ: যমুনা নদীর তীরে
> কাপ্তাই: কর্ণফুলী নদীর তীরে
> গাজীপুর: তুরাগ নদীর তীরে
> পাবনা: ইছামতি নদীর তীরে
> মুন্সিগঞ্জ: ধলেশ্বরী নদীর তীরে
> চাঁদপুর: মেঘনা নদীর তীরে
> সুনামগঞ্জ: সুরমা নদীর তীরে
> মংলা: পশুর নদীর তীরে
> নারায়ণগঞ্জ: শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে
> আশুগঞ্জ: মেঘনা নদীর তীরে
> ঝালকাঠি: বিশখালী নদীর তীরে
> ঠাকুরগাঁও: টাঙ্গন নদীর তীরে
> ভৈরব: মেঘনা নদীর তীরে
> শেরপুর: কংশ নদীর তীরে
> রংপুর: তিস্তা নদীর তীরে
> টাঙ্গাইল: যমুনা নদীর তীরে
> পঞ্চগড়: করতোয়া নদীর তীরে
> কুড়িগ্রাম: ধরলা নদীর তীরে
> কক্সবাজার: নাফ নদীর তীরে
> ফেনী: ফেনী নদীর তীরে
> লালবাগের কেল্লা: বুড়িগঙ্গা নদের তীরে
> বরগুনা: বিশখালী হরিণঘাটা নদীর তীরে
> পাকসী: পদ্মা নদীর তীরে
> মাগুড়া: কুমার গড়াই নদীর তীরে
> ভেড়ামারা: পদ্মা নদীর তীরে
> মেহেরপুর: ইছামতি নদীর তীরে
> রাজবাড়ি: পদ্মা নদীর তীরে
> চালনা বন্দর: পশুর নদীর তীরে গুরুত্বপূর্ণ নদীর শাখা নদী উপ-নদী
> পদ্মার শাখা নদী: মধুমতি, আড়িয়াল খাঁ, ভৈরব, কপোতাক্ষ, গড়াই, ইছামতি, মাথাভাঙ্গা
> যমুনার শাখা নদী: ধলেশ্বরী, বুড়িগঙ্গা
> ব্রহ্মপুত্রের শাখা নদী: যমুনা
> পদ্মার উপ-নদী: মহাগঙ্গা, টাঙ্গন, পুর্ভবা, নাগর, কুলিক
> যমুনার উপ-নদী: তিস্তা, ধরলা, করতোয়া, আত্রাই, বাঙালী
> মেঘনার উপ-নদী: শীতলক্ষ্যা, গোমতি, ডাকাতিয়া
> কর্ণফুলী নদীর উপনদী: হালদা, বোয়ালখালী, কাসালং
বিভিন্ন নদ-নদীর উৎপত্তিস্থল
> পদ্মা: হিমালয় পর্বতের গাঙ্গোত্রী হিমবাহ থেকে
> মেঘনা: আসামের নাগা মণিপুর পাহাড়ের দক্ষিণে লুসাই পাহাড় থেকে
> ব্রহ্মপুত্র: তিব্বতের কৈলাশ শৃঙ্গের মানস সরোবর হ্রদ থেকে
> কর্ণফুলী: মিজোরামের লুসাই পাহাড় থেকে
> করতোয়া: সিকিমের পর্বত অঞ্চল থেকে
> সাঙ্গু: মায়ানমার-বাংলাদেশ সীমানার আরাকান পাহাড় থেকে
> হালদা: খাগড়াছড়ির বাদনাতলী পর্বতশৃঙ্গ থেকে
> মহানন্দা: হিমালয় পর্বতমালার মহালদিরাম পাহাড় থেকে
> গোমতি: ভারতের ত্রিপুরা পাহাড়ের সাবরুমে
> খোয়াই: ত্রিপুরার আঠারমুড়া পাহাড় থেকে  
> ফেনী: পার্বত্য ত্রিপুরা পাহাড় থেকে
> মাতামুহুরী: লামার মইভার পর্বত থেকে
> যমুনা: কৈলাশ শৃঙ্গের মানস সরোবর হ্রদ থেকে
> তিস্তা: সিকিমের পর্বত অঞ্চল থেকে
> মুহুরী: ত্রিপুরার লুসাই পাহাড় থেকে
> মনু: মিজোরামের পাহাড় থেকে
> সালদা: ত্রিপুরার পাহাড় থেকে
বাংলাদেশের নদ-নদী সংক্রান্ত তথ্য
> বাংলাদেশের প্রধান প্রধান নদ-নদীর নাম: পদ্মা, মেঘনা, যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, কর্ণফুলী, সুরমা, মধুমতি
> শাখা-প্রশাখাসহ বাংলাদেশের নদ-নদীর সংখ্যা: ২৩০টি
> বাংলাদেশের দীর্ঘতম নদী: সুরমা (দৈর্ঘ্য ৩৯৯ কি. মি.)
> বাংলাদেশের দ্বিতীয় দীর্ঘতম নদী: পদ্মা (দৈর্ঘ্য ৩৬৬ কি. মি.)
> বাংলাদেশের দীর্ঘতম নদ: ব্রহ্মপুত্র (এটি বাংলাদেশের এক মাত্র নদ)
> বাংলাদেশের প্রশস্ত নদী: যমুনা
> বাংলাদেশের খরস্রোতা নদী: কর্ণফুলী
> বাংলাদেশ মায়ানমারকে বিভক্তকারী নদী: নাফ
> নাফ নদীর দৈর্ঘ্য: ৫৬ কি. মি.
> বাংলাদেশের মোট অভিন্ন বা আন্তঃসীমান্ত নদী: (বি.দ্র. ৫৮টি)
> ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে অভিন্ন নদী: ৫৫টি
> ভারত হতে বাংলাদেশে আসা নদী: ৫৫টি
> মায়ানমার থেকে আসা অভিন্ন নদী: ৩টিযথা : নাফ, সাঙ্গু মাতামুহুরী
> বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক নদীর সংখ্যা: ১টি (পদ্মা/গঙ্গা)
> বাংলাদেশ হতে ভারতে প্রবেশকারী নদী: ১টি (কুলিখ)
> বাংলাদেশ ভারতকে বিভক্তকারী নদী: হাড়িয়াভাঙ্গা
> দক্ষিণ তালপট্টি দ্বীপটি যে নদীর মোহনায় অবস্থিত : সাতক্ষীরা জেলার হাড়িয়াভাঙ্গা নদীর মোহনায়
> মেঘনা নদীর উৎপত্তিস্থল: আসামের লুসাই পাহাড়ে
> উৎপত্তিস্থলে মেঘনার নাম: বরাক নদী
> যে নদী বাংলাদেশের ভেতরে দুই ভাগ হয়ে কিছু দূর প্রবাহিত হয়ে পুনরায় মিলিত হয়: মেঘনা
> দুই ভাগ হয়ে মেঘনা যে যে নামে প্রবাহিত হয়: সুরমা কুশিয়ারা
> সুরমা কুশিয়ারা নদী মিলিত হয়ে মেঘনা নদী নাম ধারণ করে যে স্থানে: ভৈরব বাজারের নিকট আজমেরীগঞ্জ
> সুরমা কুশিয়ারা পুনরায় মিলিত হয়ে যে নাম ধারণ করে: কালনি
> কালনি পুনরায় মেঘনা নাম ধারণ করে: ভৈরব বাজারের নিকট আজমিরিগঞ্জ
> মেঘনা নদী পতিত হয়েছে: বঙ্গোপসাগরে
> বাকল্যান্ড বাঁধ যে নদীর তীরে অবস্থিত: বুড়িগঙ্গা (১৮৬৪ সালে)
> পদ্মা নদী মেঘনার সাথে মিলিত হয়েছে: চাঁদপুরে
> যমুনা নদী পদ্মার সাথে মিলিত হয়েছে: গোয়ালন্দে
> পুরাতন ব্রহ্মপুত্র নদী মেঘনা নদীর সাথে মিলিত হয়েছে: ভৈরব বাজার
> বাঙালী নদী যমুনা নদীর সাথে মিলিত হয়েছে: বগুড়ায়
> রূপসা নদীর সাথে ভৈরব নদী মিলিত হয়েছে: খুলনায়
> তিস্তা নদী ব্রহ্মপুত্র নদীর সাথে মিলিত হয়েছে: কুড়িগ্রামের চিলমারীতে
> বাংলাদেশের জলসীমার উৎপত্তি সমাপ্তি নদী: হালদা সাঙ্গু
> হালদা নদীর উৎপত্তিস্থল: খাগড়াছড়ির বাদনাতলী পর্বতশৃঙ্গ থেকে
> বাংলাদেশ হতে ভারতে গিয়ে পুনরায় বাংলাদেশে প্রবেশকারী নদীগুলো হল: আত্রাই, মহানন্দা, (পুনর্ভরা, টাঙ্গন)
> কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ হয়: ১৯৬২ সালে
> কোন নদীতে বাঁধ দিয়ে কৃত্রিম হ্রদ তৈরি করা হয়েছে: কর্ণফুলী নদীতে
> জোয়ার ভাটা হয় না যে নদীতে: গোমতী
> গোমতী নদীকে বলা হয়: কুমিল্লার দুঃখ
> যে নদীটি একজন ব্যক্তির নামে নামকরণ করা হয়: রূপসা (রূপ লাল সাহার নামে)
> যমুনা নদীর পূর্ব নাম: জোনাই নদী
> বুড়িগঙ্গা নদীর পূর্বনাম: দোলাই নদী (দোলাই খাল)
> ব্রহ্মপুত্র নদীর পূর্বনাম: লৌহিত্য
> পদ্মা নদীর পূর্বনাম: কীর্তিনাশা
> পদ্মা নদীর শাখা নদী: মধুমতি, আড়িয়াল খাঁ, ভৈরব, কপোতাক্ষ, গড়াই, বড়াল, ইছামতি, কুমার, মাথাভাঙ্গা
> পদ্মার উপ-নদী: মহাগঙ্গা, টাঙ্গন, পুনর্ভবা, নগর, কুলিক
> যমুনা নদীর শাখা নদী: ধলেশ্বরী, বুড়িগঙ্গা
> যমুনা নদীর উপনদী: তিস্তা, ধরলা, করতোয়া, আত্রাই, বাঙালী, দুধকুমার, যমুনেশ্বরী
> মেঘনা নদীর উপনদী: শীতলক্ষ্যা, গোমতি, ডাকাতিয়া
> কর্ণফুলী নদীর উপনদী: চেঙ্গী, মাসলং, সাইনী, হালদা, কাপ্তাই, রাথিয়ং, গোয়ালখালী
> মায়ানমার হতে বাংলাদেশে আসা নদী: তিনটিনাফ, মাতামুহুরী সাঙ্গু
> বুড়িগঙ্গা যে নদীর শাখা নদী: ধলেশ্বরী
> পদ্মা নদী যে জেলার মধ্যদিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে: নবাবগঞ্জ (বৃহত্তর রাজশাহী)
> মেঘনা নদী যে জেলার মধ্যদিয়ে প্রবেশ করেছে: সিলেট
> ব্রহ্মপুত্র নদ যে জেলার মধ্যদিয়ে প্রবেশ করেছে: কুড়িগ্রাম
> তিস্তা নদী বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে যে জেলার মধ্যদিয়ে: নীলফামারী জেলা
> কর্ণফুলী নদী যে জেলার মধ্যদিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে: পার্বত্য চট্টগ্রাম রাঙামাটি মধ্যদিয়ে
> ‘নদী সিকস্তিবলা হয়: নদীর ভাঙনে সর্বস্বান্ত জনগণকে
> ‘নদী পয়স্তীবলা হয়: নদীর চর জাগলে যারা চাষাবাদ করতে যায় তাদেরকে
> যে নদীর মোহনায় নিঝুম দ্বীপ অবস্থিত: মেঘনা
> মাওয়া ফেরীঘাট যে নদীর তীরে অবস্থিত: পদ্মা নদীর তীরে
> মাওয়া ফেরীঘাট যে জেলায় অবস্থিত: মুন্সিগঞ্জ জেলায়
> কাওরাকান্দি ফেরীঘাট যে জেলায় অবস্থিত: রাজবাড়ি জেলায়
> পাটুরিয়া ফেরীঘাট যে জেলায় অবস্থিত: মানিকগঞ্জ জেলায়
> আরিচা ফেরীঘাট যে জেলায় অবস্থিত: মানিকগঞ্জ জেলায়
> নগরবাড়ি ফেরীঘাট যে জেলায় অবস্থিত: পাবনা জেলায়
> বাহাদুরাবাদ ঘাট যে জেলায় অবস্থিত: জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জে
> জগন্নাথগঞ্জ ঘাট যে জেলায় অবস্থিত: জামালপুর জেলার সরিষাবাড়িতে
> ব্রহ্মপুত্র নদীর প্রধান শাখার নাম: যমুনা
> শীতলক্ষ্যা নদীর উৎপত্তিস্থল: পদ্মা নদী থেকে
> বাংলাদেশের প্রধান নদী বন্দর: নারায়ণগঞ্জ
> বাংলাদেশের নদী গবেষণা ইনষ্টিটিউট অবস্থিত: ফরিদপুরে
> বাংলাদেশের যে জেলাটির নামকরণ করা হয়েছে একটি নদীর নামানুসারে: ফেনী
> টিপাইমুখ অবস্থিত: ভারতের মণিপুর রাজ্যের চুরাচাঁদপুর জেলায় (বাংলাদেশের সিলেটের জকিগঞ্জ সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ১০০ কি. মি.)
> ভারতে সমপ্রতি যে নদীতে বাঁধ দেয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে: টিপাইমুখ নামক স্থানে বরাক নদীতে (সুরমা যা পরবর্তীতে মেঘনা নদীতে পরিনত হয়)
> ভারত যে নদীর ওপর ফারাক্কা বাঁধ তৈরি করেছে: গঙ্গাএক নজরে বাংলাদেশ পরিচিতি
> সরকারি নাম : গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ (People’s Republic of Bangladesh)
> রাজধানী : ঢাকা
> ভাষা : রাষ্ট্র ভাষা বাংলা
> আয়তন : ,৪৭,৫৭০ বর্গকিলোমিটার বা ৫৬,৯৭৭ বর্গ মাইল
> ভৌগোলিক অবস্থান : 20034’’ উত্তর হতে 26038’’ উত্তর অক্ষাংশ এবং 88001’’ পূর্ব হতে 92041’’ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ
> সীমানা : উত্তরে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ, আসাম মেঘালয়, পূর্বে ভারতের আসাম, ত্রিপুরা, মিজোরাম এবং মায়ানমারপশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং দক্ষিণে বঙ্গোসাগর
> মোট সীমা : ,১৩৮ কি. মি.
> সরকার পদ্ধতি : সংসদীয় পদ্ধতির সরকারগণতান্ত্রিক ব্যবস্থা, এক কক্ষবিশিষ্ট পার্লামেন্ট এর নাম জাতীয় সংসদজাতীয় সংসদে ৩০০ জন নির্বাচিত প্রতিনিধি থাকে(এখানে উল্লেখ্য যে, সংসদে মহিলাদের জন্য ৪৫টি সংরক্ষিত আসন রয়েছেমোট আসন ৩৪৫টি)
> মাথাপিছু আয় : ৭৫০ মার্কিন ডলার (সূত্র অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০)
> মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণ : ১০,৩১২ টাকা [১৪৭ মার্কিন ডলার]
> স্থানীয় সময় : গ্রীনিচ মান সময় অপেক্ষা ঘণ্টা আগে
> জলবায়ু : মৌসুমি জলবায়ু বিরাজমান
> গড় তাপমাত্রা : ২৫.৭০ ডিগ্রী সেলসিয়াস
> গড় বৃষ্টিপাত : ২০৩ সেন্টিমিটার
> লোকসংখ্যা : ১৪ কোটি ৬১ লাখ (অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০) (২০০১ সালের আদমশুমারি রিপোর্ট অনুযায়ী ১২ কোটি ৯২ লাখ ৪৭ হাজার ২৩৩ জন)
> পুরুষ : ,৫৮,৪১,৪১৯ জন [২০০১ আদমশুমারি রিপোর্ট]
> মহিলা : ,৩৪,০৫,৮১৪ জন[২০০১ আদমশুমারি অনুযায়ী]
> পুরুষ মহিলা অনুপাত : ১০৪ : ১০০ [অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০] ১০৩. : ১০০ জন[২০০১ আদমশুমারি অনুযায়ী]
> জনসংখ্যার ঘনত্ব : বর্তমানে ৯৯০ জন প্রতি বর্গ কি.মি. (অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০)(২০০১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী ৮৩৪ জন প্রতি বর্গ কি.মি. )
> জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার : .৩২% (অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০)
> মানুষের গড় আয়ু : ৬৬. বছর(সূত্র অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০)
> সাক্ষতার হার : ৫৪.% (সূত্র : অর্থনৈতিক সমীক্ষা-২০১০)
[নোট : আর মাত্র কদিন পরেই ২০১১ সালের আদমশুমারি রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে, তখন নতুন হিসাব সরবরাহ করা হবে]
> ধর্ম : মুসলিম ৮৮.৩৫%, হিন্দু ১০.%, বৌদ্ধ .%, খ্রিস্টান .% এবং অন্যান্য .%
> অর্থনীতি : দেশের অর্থনীতি প্রধানত কৃষিনির্ভর
> প্রধান রপ্তানি দ্রব্য : বাংলাদেশের প্রধান রপ্তানি দ্রব্যগুলো হলো তৈরি পোশাক, চা, হিমায়িত চিংড়ি, চামড়া, কাঁচা পাট পাটজাত দ্রব্যাদি
> প্রধান আমদানি দ্রব্য : বাংলাদেশের প্রধান আমদানি দ্রব্যের মধ্যে রয়েছে খাদ্যসামগ্রী, অপরিশোধিত তেল, ঔষধ, শিল্পের কাঁচামাল, কল-কব্জা, রাসায়নিক দ্রব্য, খুচরা যন্ত্রাংশ প্রভৃতি
> বিভাগ : ৭টি
> সর্বশেষ বিভাগ হলো : রংপুর
> সিটি কর্পোরেশন : ৬টি
> জেলা : ৬৪টি
> উপজেলা : ৪৮৩ টি (সর্বশেষ ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার বিজয়নগর)
[নোট : কুমিল্লার ভাঙ্গুরাকে ৪৮৪তম উপজেলা হিসেবে ঘোষণা করা হলেও এখনও প্রশাসনিক কার্যক্রম শুরু হয়নি]
> প্রশাসনিক থানা : ৬০৯টি
> ইউনিয়ন : ,৫০১টি
> গ্রাম : ৮৭,৩১৯টি
> পৌরসভা : ৩১১টি