শনিবার, ২৫ জুন, ২০১১

খালি পেটে ভাইরাস বানাবেন না


খালি পেটে ভাইরাস বানাবেন না

ঘটনাটা ভার্সিটির ৩য় সেমিস্টার শুরুর দিকের। আমাদের মধ্যে একটু অন্যরকম ভাব, জুনিয়র একটি ব্যাচ ও এসে গেছে, মানে আমরা সিনিয়র। তো কম্পু সায়েন্সে সিনিয়রিটি দেখানোর জন্য আমাদের অনেকেই অনেক ভাবের জিনিসপত্রের মধ্যে ঢুকে পড়েছে। তার মধ্যে আবার কেউ কেউ ভাইরাস বিশেষজ্ঞ ও হয়ে পড়েছে। ভাইরাস না বানিয়ে ছাড়বে না । যাই হোক সে অন্য কথা। যে ঘটনাটা বলতে পোস্ট লিখা সেটিই বলি।
সকালে সম্ভবত ক্লাস টেস্ট ছিল, তারপর একটানা ৩ টা ক্লাস, আমি তো চরম ক্লান্ত। এর মধ্যে ক্লাস শেষেই এক সহপাঠী ধরে বসল চল, লাইব্রেরিতে যাব। আমি তো যেতেই চাই না, সে কিন্তু বদ্ধপরিকর আমাকে লাইব্রেরিতে নিয়ে যাবে। এবং কিছু একটা দেখাবে সেটার জন্য লাইব্রেরির কম্পিউটারঅই সবচেয়ে আদর্শ। আমি যতই বলি রুমে গিয়ে তোর পিসিতে দেখি, সে কিছুতেই রাজী হয় না। কি আর করা গেলাম। দুইজনেরই প্রচন্ড খিদা। বললাম খেয়ে যাই, সে বলে না। আগে দেখাবে তারপর খাওয়া। কি আর করা খিদা নিয়েই গেলাম ( মনে মনে বেচারাকে চরম গালাগাল করে ) অনেক খুজেপেতে কোনার একটা পিসিতে বসলাম। ও পকেট থেকে পেনড্রাইভ বের করল। তারপর চোরা চোরা চোখে এদিক ওদিক তাকাল, আমিও তাকালাম, লাইব্রেরির পিসিতে কি না কি জিনিস চালায়,পরে আবার ফেসে যাই আর কি! পেনড্রাইভ লাগিয়ে সে একটা ফাইল কপি করে ডেক্সটপে রাখল। আবার এদিক ওদিক তাকায়, আমি তো ভয় পেলাম, নিষিদ্ধ কিছু না তো?
ওকে বললাম কি রে এইটা? সে বলে আরে দাড়া মজা দেখ। বলে সে ফাইলে ক্লিক করল। আমি তো মজার অপেক্ষায় বসে আছি, মজা শুরু হয় না। আবার ক্লিক করে সে বলে দাড়া এক্ষুনি মজা শুরু হবে। আমিও তাকিয়ে থাকলাম কি আমন মজা। কিন্তু না, এবারো হয় না। এরপর তো ওর মাথা খারাপ, ফাইলটা নোটপ্যাডে খুলে বার বার দেখে, আমি দেখি বলে সব তো ঠিক আছে। আবার ডবল ক্লিক, কোনো কাজ হয় না এবারো। আবার পেনড্রাইভ থেকে ফাইলটা বের করে আবার চেস্টা এবারো ব্যার্থ।
আমি এবার চেপে ধরলাম, কি এমন মজা যেটা শুরুই হয় না? আজব তো! আমি ক্ষিদায় মরি আর তুই মজা দেখাস?  সে ও অবাক। এরপর বলে, “দোস্ত এটা একটা ভাইরাসের কোড  । পিসিতে রান করালে সিডি ড্রাইভ খালি খুলে আর বন্ধ হয়, রিস্টার্ট না দেয়া পর্যন্ত ! ” আমি এবার আগ্রহী হলাম, এমন মজা তো আগে দেখি নাই ! বললাম তুই টেস্ট করেছিস? সে বলে হ্যা, আমার পিসিতে রান করিয়ে তো ভয়ই পেয়ে গেছিলাম। কিন্তু এখানে চলে না কেনো? আমিও অবাক। এখানে চলে না কেনো? আমিও এবার কয়েকবার ক্লিক করলাম। চলে না।
এবার ওর মাথা গরম, বলে দাড়া যে ওয়েবসাইট থেকে নামিয়েছি ওখানে আবার যাই। দেখি কি সমস্যা। আমি কি ভেবে যেনো ওর পেনড্রাইভটা খুলতে গেলাম ( ও বলে নাই তারপর ও )। তারপরই যা দেখলাম তাতে হাসতে হাসতে আমি রিতিমত ফ্লোরে গড়াগড়ি খাওয়ার দশা। বেচারা চরম ক্ষেপে গিয়ে আমার দিকে তাকায়। আমি হাসির জন্য কিছুই বলতে পারি না।
শেষমেস হাসি থামিয়ে কোনোমতে বললাম দোস্ত এই পিসিতে তো সিডি ড্রাইভ ই নাই। তোর ভাইরাস কাজ করবে কেমনে!!!
Previous Post
Next Post
Related Posts

0 comments: